মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

শিবগঞ্জ এর সিল্ক

        

         শিবগঞ্জের কুটির শিল্পের মধ্যে রেশমই প্রধান। প্রাচীনকাল হতেই এ উপজেলায় রেশম শিল্পের কাজ হয়। এখনও এ উপজেলার নয়ালাভাংগা ইউনিয়নের হরিনগর গ্রামে উৎকৃষ্টমানের মটকা ও রেশম শাড়ী -কাপড় তৈরী হয়ে থাকে। কুটির শিল্পের মধ্যে এই উপজেলার রেশমই সর্বপ্রধান। পূর্বকালে এখানকার রেশমী বস্ত্র সুদূর ইউরোপে রপ্তানি হতো। শোনা যায় যে, হিন্দু রাজত্বের শেষের দিকে এই অঞ্চল হতে ঢাকা, সোনারগাও, সপ্তগ্রাম প্রভৃতি অঞ্চলে বস্ত্র রপ্তানি হতো। ওলন্দাজ ও ইংরেজদের অধীনেও কয়েকটি রেশমের কারখানা ছিল। দিয়াড় অঞ্চল এককালে রেশম আবাদের জন্য প্রসিদ্ধ ছিল রেশমের গুটিপোকা পালনে এবং সূতা কাটার সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ এলাকা ভোলাহাট হলেও শিবগঞ্জ অঞ্চলেও বিস্তার লাভ করে। শিবগঞ্জে এখনও উৎকৃষ্ট মটকা ও রেশমের কাপড় তৈরী হয়ে থাকে। রেশম শিল্পকে উজ্জীবিত করিবার উদ্দেশ্যে নবাবগঞ্জ রেল স্টেশনের সন্নিকটে একটি উন্নতমানের সেরিকালচার নার্সারী হয়েছে। ভোলাহাটেও অনুরূপ একটি রেশমকীট পালনের নার্সারী প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ইউরোপীয়ান তাঁতশিল্পীগণ দেশ বিভাগ পর্যন্ত এখানে রেশমের কারাখানা চালু রেখেছিল। বহুলোক এখানে এ ব্যবসায়ে নিযুক্ত ছিল।